1. dailybanglardhumketu@gmail.com : Mirajul2022 :
একজন স্বপ্নবাজ শিক্ষকের স্বপ্ন - Banglar Dhumketu
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৩ পূর্বাহ্ন

একজন স্বপ্নবাজ শিক্ষকের স্বপ্ন

  • প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, ২ অক্টোবর, ২০২১
  • ৭৭০ বার দেখা হয়েছে
একজন স্বপ্নবাজ শিক্ষকের স্বপ্ন

মোঃ হিমায়েত মোল্যা ::

দৈনিক বাংলার ধূমকেতুঃ

আসসালামু আলাইকুম স্যার!
কেমন আছেন আপনি?
আপনার সম্পর্কে কিছু বলুন?

উৎস এ আরেফিনঃ

ওয়ালাইকুমুস সালাম!
আলহামদুলিল্লাহ!
আমার জন্ম আর বেড়ে ওঠা ঢাকাতেই। আমার স্কুল “আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মতিঝিল,ঢাকা।” আমার কলেজ “নটর ডেম কলেজ” তাঁরপর “মিলিটারি ইন্সটিটিউট অফ সাইয়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (এমআইএসটি)” থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং করেছি।


আরো পড়ুন: মৌসুমীর সাথে প্রথমবার অভিনয় করবেন তৌসিফ মাহবুব
আরো পড়ুন: ১৪ নভেম্বর এসএসসি এবং ২ ডিসেম্বর এইচএসসি পরীক্ষা


দৈনিক বাংলার ধূমকেতুঃ

আপনার ভালোলাগার দিকটি বলুন?

উৎস এ আরেফিনঃ

ফটোগ্রাফি, ট্রাভেলিং, লিটারেচার আমার ভালো লাগে। দীর্ঘ সময় ধরে বাংলাদেশের বিভিন্ন ফটোগ্রাফি এবং ট্রাভেলিং কম্যুনিটির সাথে জড়িত আছি। বাংলাদেশ এবং পশ্চিম বঙ্গের অনেক সাহিত্য সমাজের সাথেও নিয়মিতভাবে কাজ করছি।

দৈনিক বাংলার ধূমকেতুঃ

আপনার মতে শিক্ষক-স্টুডেন্টসের মাঝে কেমন সম্পর্ক হওয়া উচিত?

উৎস এ আরেফিনঃ

একটি সুন্দর শিক্ষার পরিবেশের জন্য ছাত্র-শিক্ষক সম্পর্ক সাবলীল হওয়া আবশ্যিক। আমি ছাত্রাবস্থায় অগণিত মহানুভব শিক্ষক-শিক্ষিকার সংস্পর্শে আসার সুযোগ পেয়েছি; নিজের শিক্ষকতার ক্ষেত্রে আমি তাঁদের চিন্তাধারা ও দেখানো পথে চলার চেষ্টা করি। এক্ষেত্রে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে যেন কোন দূরত্ব তৈরি না হয় সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখা।

দৈনিক বাংলার ধূমকেতুঃ

সরকারি/বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম সম্পর্কে কিছু বলুন?

উৎস এ আরেফিনঃ

বাংলাদেশে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ে অধিকাংশক্ষেত্রেই বেসরকারি বিস্ববিদ্যালয়গুলো তুলনামূলকভাবে নতুন। তবে ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি, বাংলাদেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুব দ্রুত প্রথম সারির সরকারি বিশ্ববিদ্যালের সাথে প্রতিযোগীতায় চলে আসছে। গত দেড় বছরের কোভিড আক্রান্ত সময়ে এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইনভিত্তিক কর্মতৎপরতা সেদিকেই ইঙ্গিত করছে।

উদাহরণসরূপ, নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ, শিক্ষকমন্ডলী, কর্মকর্তা ও ছাত্র-ছাত্রীদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় ২০২০ এর মার্চে প্রথমবার লকডাউনের শুরু থেকেই তাৎক্ষণিকভাবে অনলাইনে শিক্ষাকার্যক্রম শুরু করতে পেরেছি; যেখানে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পথচলা অনেক সময়ই এতটা মসৃণ ছিলো না। সাথে আরেকটি বিষয় উল্লেখ করা উচিৎ, ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে আমি মনে করি, দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক সম্পর্ক অধিকতর সৌহার্দ্যপূর্ণ।

দৈনিক বাংলার ধূমকেতুঃ

বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আপনার চিন্তা-ভাবনা কি?

উৎস এ আরেফিনঃ

একজন ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থায় যে নেতিবাচক দিকটি আমি সবচেয়ে বেশি অনুভব করি সেটি হলো এড্যুকেশনাল ইন্সটিটিউশন এবং ইন্ডাস্ট্রির মাঝে দূরত্ব। বিদেশি প্রযুক্তি থেকে নির্ভরতা কমিয়ে নিজেদের প্রযুক্তি সামনে আনতে না পারলে দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব না, আর নিজেদের প্রযুক্তি এগিয়ে নিতে প্রয়োজন ইন্ডাস্ট্রিগুলোর নিজস্ব গবেষণা বিভাগ।

বিশেষভাবে এ জায়গাটিতে ইউনিভার্সিটি আর ইন্ডাস্ট্রির কোলাবোরেশন হলে দু’পক্ষই সমানভাবে লাভবান হতে পারবে। নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্টড়নিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের উদ্যোগে আমরা বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রির সাথে যৌথ সহযোগীতা করে আসছি, কিন্তু সমাজের সামগ্রিক উন্নয়ন চাইলে এতে সর্বোতভাবে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
সকল অধিকার সংরক্ষিত © দৈনিক বাংলার ধূমকেতু ২০২১